Home / ময়মনসিংহ / অনুমতি ছাড়াই চলছে “সরিষাবাড়ি শাহীন স্কুল ।।

অনুমতি ছাড়াই চলছে “সরিষাবাড়ি শাহীন স্কুল ।।

সংবাদদাতা : আনিছুর রহমান,জামালপুর,সরিষাবাড়ি।

অনলাইন ডেস্ক: জামালপুর সরিষাবাড়ি উপজেলা প্রশাসনকে কালো চশমা পড়িয়ে নাকের ডগায় চলছে শাহীন স্কুল এন্ড ক্যাডেট কলেজ। বিনা পাঠদান বা কোন রেজিষ্ট্রেশন প্রয়োজন হচ্ছে-না এই শাহীন স্কুল পরিচালকদের। বলতে গেলে প্রাণকেন্দ্রে (৩ তিন ) তিনটি স্কুল গড়ে উঠেছে। যাঁর মধ্যে ১ টি হলো পোস্টঅফিস সংলগ্ন, ২, সিমলা বাজার সিনথিয়া কটেজ ও তারাকান্দি যমুনা সারকারখানা। সরকারি নীতিমালা তোয়াক্কা না করে, না-কি মেনেজ করেই, অবৈধ ভাবে চলছে সরিষাবাড়ি শাহীন স্কুল এন্ড ক্যাডেট কলেজ।

জানা যায়,টাঙ্গাইল থেকে অনুমতি প্রাপ্ত হয়ে সরিষাবাড়ি শাহীন ইস্কুল এন্ড কলেজ পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু  টাঙ্গাইলের নীতিমালা অপেক্ষা করে, না মেনেই নিজের খেয়াল খুশি মতো চলছে স্কলটি। চলছে রমরমা ব্যাবসা প্রতিমাসে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ-লক্ষ টাকা।

অন্যদিকে জানা যায়, সরিষাবাড়ি স্কল পোস্টে অফিস সংলগ্ন শাখায় ৪০০ জন ছাত্র ছাত্রী, সিমলা বাজার শাখায় ২৫০ জন এবং যমুনা সারকারখানা শাখায় ৪২৫ জন ছাত্র ছাত্রী ভর্তি আছে।যাদের প্লে ছাত্র/ছাত্রীর কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ৫শ টাকা,নার্সারি ৬শ টাকা প্রথম শ্রেণির ১১শ টাকা ২য় শ্রেণির ১১শ টাকা, ৩য় শ্রেণির ১৩শ টাকা, ৪র্থ শ্রেণির ১৪শ, ৫ম শ্রেণির ১৭শ টাকা,৬ষ্ঠ শ্রেণির ১৮শ টাকা,৭ম শ্রেণি ১৭শ টাকা, ৮ম শ্রেণির ২শ হাজার টাকা, ৯ম শ্রেণির ২ হাজার ২শ টাকা এবং ১০ম শ্রেণির পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে ২ হাজার ৫শত টাকা করে। যাঁর হিসাব মতে প্রতিমাসে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে ধারণা বিশিষ্টজনের। এবং স্কুল পরিচালনার ক্ষেত্রে কোনরকম নীতিমালা তোয়াক্কা করছেনা। অযোগ্য এবং অদক্ষ শিক্ষক ও পাঠদান অনুমতি বিহীন ক্লাস, যে ক্লাসে শুরু হতে শেষপর্যন্ত অনিয়ম চলছে তো চলছেই। এ-ই অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাইলে স্কুল পরিচালক তোজাম্মেল হোসেন বলেন,আমরা পাঠদান অনুমতির জন্য কাজ করছি। কিন্তু সরকার এই মূহুর্তে পাঠদান অনুমতি দিচ্ছে না।

About admin

Check Also

জামালপুরের মেলান্দহে পৃথক বিদ্যুতস্পৃষ্টের ঘটনায় শিশু ও এক কৃষকের মৃত্যু।।

অনলাইন ডেস্ক :     পৃথক বিদ্যুতস্পৃষ্টের ঘটনায় শিশু ও এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *