Home / ধর্ম / আজ শুক্রবার-মুসলিম উম্মাহর সাপ্তাহিক উৎসবের দিন।।

আজ শুক্রবার-মুসলিম উম্মাহর সাপ্তাহিক উৎসবের দিন।।

হাজি মোঃ খালেদ মাহমুদ লিটন- শরীয়তপুর।

অনলাইন ডেস্ক :     আজ শুক্রবার।মুসলিম উম্মাহর সাপ্তাহিক উৎসবের দিন।ইয়াওমুল জুমা বলা হয় এই দিনকে।আল্লাহ তায়ালা ছয় দিনে সৃষ্টি করেছেন নভোমণ্ডল,ভূমণ্ডল ও গোটা জগতকে।জুম্মার দিন ছিল এই ছয় দিনের শেষ দিন।হজরত আদম (আ.) সৃজিত হন এই দিনেই।তাঁকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয় এ দিনেই এবং জান্নাত থেকে পৃথিবীতে নামানো হয় এ দিনেই।

এ দিনেই সংঘটিত হবে কেয়ামত।আল্লাহ তায়ালা এ দিন নির্ধারণ করেছিলেন প্রতি সপ্তাহে মানবজাতির সমাবেশ ও ঈদের জন্য।কিন্তু তা পালন করতে ব্যর্থ হয় পূর্ববর্তী উম্মতরা। ইসলামের জুম্মার গুরুত্ব অপরিসীম।স্বয়ং আল্লাহপাক কোরআন পাকে ইরশাদ করেন ‘হে মুমিনগণ জুম্মার দিনে যখন নামাজের আজান দেয়া হয়,তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণের উদ্দেশেও দ্রুত ধাবিত হও এবং ক্রয়-বিক্রয় ত্যাগ কর’। সূরা জুমা, আয়াত নং-৯।

সব মুসলমানের ইমানি দায়িত্ব জুম্মার আজানের আগেই সব কর্মব্যস্ততা ত্যাগ করে জুম্মার নামাজের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করে মসজিদে গমন করা।এমন একটি সময় এ দিনে রয়েছে,মানুষ তখন যে দোয়াই করে তা-ই কবুল হয়।বিশেষ কিছু আমল রয়েছে এই দিনের,যা প্রমাণিত হাদিস দ্বারা।

এই জুম্মার দিনের একটি গুরুত্বপূর্ণ আমল সম্পর্কে হযরত আবু হুরাইরা (রা.) হতে বর্ণিত রাসূল পাক (সা.) ইরশাদ করেন,যে ব্যক্তি জুম্মার দিন আসর নামাজের পর না উঠে ওই স্থানে বসা অবস্থায় ৮০ বার নিম্নে উল্লেখিত দরুদ শরিফ পাঠ করবে,তার ৮০ বছরের গুনাহ মাফ হবে এবং তার আমল নামায় লেখা হবে ৮০ বছরের নফল ইবাদতের সওয়াব।সুবনহান আল্লাহ…।

সেই দোয়াটি হলো-আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা মুহাম্মাদিনিন নাবিয়্যিল উম্মিয়্যি ওয়া আলা আলিহী ওয়াসাল্লিম তাসলীমা।

পবিত্র জুম্মার দিনের আরো কিছু আমলের মধ্যে রয়েছে …

(১) সূরা কাহাফ তিলাওয়াত করা: জুম্মার দিনে সূরা কাহ্ফ তিলাওয়াত করলে কিয়ামতের দিন আকাশতুল্য একটি নূর প্রকাশ পাবে।

(২)  জুম্মার নামাজের পূর্বে দুই খুতবার মাঝখানে হাত না উঠিয়ে মনে মনে দোয়া করা।

(৩) সূর্য ডোবার কিছুক্ষণ আগ থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত গুরুত্বের সাথে জিকির, তাসবীহ ও দোয়ায় লিপ্ত থাকা।

(৪) বেশি বেশি দরুদ শরিফ পাঠ করা এবং বেশি বেশি জিকির করা মোস্তাহাব।

(৫) জুম্মার রাত (বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত) ও জুম্মার দিনে নবী করিম (সা.) এর প্রতি বেশি বেশি দরুদ পাঠের কথা বলা হয়েছে।এমনিতেই যে কোনো সময়ে একবার দরুদ শরিফ পাঠ করলে আল্লাহ তায়ালা দশটা রহমত দান করেন পাঠকারীকে এবং ফেরেশতারা দশবার রহমতের দোয়া করেন তার জন্য। *তথ্য সংগ্রহকরা*

About admin

Check Also

যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে শুক্রবার সারা দেশে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)।।

হাজি মোঃ খালেদ মাহমুদ লিটন- শরীয়তপুর। অনলাইন ডেস্ক :     মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্ম ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *