Home / রাজনীতি / ঈদ-উল-আয্হা শুধু উজ্জাপন করবার নয়,এই ঈদ আমাদের সকল মুসলমানদের স্মরণ করিয়ে দেয় হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর চূড়ান্ত ত্যাগ ও বলিদানের ইতিহাস-ববি হাজ্জাজ ।।

ঈদ-উল-আয্হা শুধু উজ্জাপন করবার নয়,এই ঈদ আমাদের সকল মুসলমানদের স্মরণ করিয়ে দেয় হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর চূড়ান্ত ত্যাগ ও বলিদানের ইতিহাস-ববি হাজ্জাজ ।।

অনলাইন ডেস্ক: ঈদ মুবারাক ! পরম করুণাময় আল্লাহ্ তাআলার শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি আমরা, তবুও সব কিছু অনুভব করার শক্তি আল্লাহ্ তাআলা আমাদের দেন নাই। সময়ের গতি ধারাকেও আমরা ঠিকভাবে ধারণ করতে পারি না। `হাজার বছর’ আসলে কতটা সময় তা আমরা অনুধাবন করতে পারি না । আর কত হাজার বছর আগে হযরত ইব্রাহিম (আঃ) তার সবচাইতে বেশী ভালবাসা ও স্নেহের পাত্র, তার সন্তানকে আল্লাহ্ তাআলার নির্দেশ অনুযায়ী কুর্বানি দিতে রওয়ানা হয়েছিলেন, সেটাও আমদের বোধশক্তির বাহিরে।

আল্লাহ্ তাআলা, যার নামেই আছে আর-রহমান ও আর-রাহিম, তার করুণার কোন শেষ নেই। নিশ্চয়ই সে আমাদের সর্বদা সঠিক পথে পরিচালনা করেন। প্রথম যখন হযরত ইব্রাহিম (আঃ) স্বপ্নে দেখেন তার পুত্র হযরত ইসমাইল (আঃ) কে আরাফাত পাহাড়ের চুরায় নিয়ে কুর্বানি করতে হবে, তখন সে ভেবে নেন যে এটা শয়তানের কোন ছল চাতুরি। কিন্তু পরের রাতেও যখন তিনি একই স্বপ্ন দেখেন তখনই কেবল তিনি বুঝতে পারেন যে এটা পরম করুণাময় আল্লাহ্ তাআলার নির্দেশ।

যিনি বিচার দিবসের মালিক “মা-লিকি ইয়াওমিদ্দি-ন” (সূরা ফাতেহার, আয়াত ৩), নিশ্চই তিনি কখনো আমাদের ভুল পথে পরিচালনা করেন না। তাই সঠিক বিশ্বাস নিয়ে, জোর মনোবলের সাথে, হযরত ইব্রাহিম (আঃ) রওয়ানা হলেন তার পুত্র হযরত ইসমাইল (আঃ) কে নিয়ে আরাফাত পাহাড়ের পথে ।

পাহাড়ের চূড়ায় পৌঁছে হযরত ইব্রাহিম (আঃ) যখন তার পুত্রকে পুরো সত্যটা জানালেন। এতটাই আল্লাহ্ ভক্তি ছিল হযরত ইসমাইল (আঃ) এর মধ্যে যে তিনি নিজেই তার পিতাকে বললেন তার হাত, পা, বেধে দিতে, যেন তিনি মরন ব্যাধিতে ছুটাছুটি করে আল্লাহ্ তাআলার নির্দেশনা অমান্য না করে ফেলেন । নিজের প্রাণপ্রিয় পুত্রের বলিদান দেবার সময় হযরত ইব্রাহিম (আঃ) তার নিজ চোখ বেধে নেন। কুরবানি দেবার পর যখন তিনি তার চোখের বন্ধন খুললেন তখন তিনি সত্যি উপলব্ধি করেন কেন আল্লাহ্ তাআলা ‘আর-রহমান আর-রাহিম’। কারণ আল্লাহ্ তাআলা হযরত ইসমাইল (আঃ) কে কুরবানি হতে দেন নাই, “আমি তার পরিবর্তে দিলাম যবেহ করার জন্যে এক মহান জন্তু” (সুরা ৩৭ , আয়াত ১০৭)।

ঈদ-উল-আয্হা শুধু উজ্জাপন করবার নয় । এই ঈদ আমাদের সকল মুসলমানদের স্মরণ করিয়ে দেয় হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর চূড়ান্ত ত্যাগ ও বলিদানের ইতিহাস । আর সেই ত্যাগের আলোকে আজ আমরা সকলেই এক হয়ে, কোন বিভেদ বা বিভাজন ছাড়া, পবিত্র ঈদ-উল-আয্হা উজ্জাপন করছি।

দেশ ও জাতি হিসেবে আমরা বড় জটিল ও বিপজ্জনক একটা সময় পার করছি । একে অপরের প্রতি আস্থা হারাতে চলেছি, সরকারি কাঠামোর উপর আস্থা তো অনেক আগেই হারিয়েছি । সরকারি পর্যায়ে যাদের নেতৃত্ব দেবার কথা তারা জনগণকে শুধু হতাশই করে না, তারা মাঝে মধ্যে মনে হয় জনগণকে নিছক তামাশার পাত্র মনে করে; তাই তো ডেঙ্গু যখন মহামারী রূপ ধারণ করে তখন মন্ত্রী, মেয়ররা মডেল ও নায়ক নায়িকাদের নিয়ে ‘selfie’ তুলতে ব্যস্ত হয়ে যান। কুরবানির অর্থ ‘ত্যাগ স্বীকার’। আজ ঈদের লাখো আনন্দের মধ্যে আমাদের সেই ত্যাগের মহৎ চেতনার কথা মনে রাখতে হবে । আগামীর সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে হলে আমাদের মহান করুণাময় আল্লাহ্ তাআলার প্রতি আস্থা রেখে, ত্যাগের সেই মহান পথে পথচলা শুরু করতে হবে।আবারও সবাইকে জানাই ঈদ মুবারাক!জয় বাংলাদেশ

About admin

Check Also

মির্জা আব্বাস একদিন পরই বদলালেন নিজের সুর।।

অনলাইন ডেস্ক :    বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস একদিন পরই বদলালেন নিজের সুর। তিনি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *