Home / জাতীয় / এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ,এগিয়ে যাবে-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা…

এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ,এগিয়ে যাবে-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা…

অনলাইন ডেস্ক: সিঙ্গেল ডিজিটে আনতে হবে ব্যাংকের সুদের হার।শিল্পখাত ও ব্যবসা-বাণিজ্য বিকশিত হয় না ব্যাংকে উচ্চহারে সুদ থাকলে।যে প্রস্তাব করা হয়েছে খেলাপী ঋণ কমিয়ে আনতে তা যুগোপযোগী।বলেছেন,প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা।প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন-জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের ওপর সাধারণ আলোচনার সমাপনী বক্তৃতায় শনিবার বিকালে,আমাদের ভাবতে হবে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের কথাও।পুঁজিবাজারের জন্য অনেক প্রণোদনা রয়েছে এবারের বাজেটে।ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে যা পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতার স্বার্থে।স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এই সময় অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

একাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় অধিবেশনে অর্থবিল-২০১৯ পাসের প্রস্তাব উত্থাপনের পর জনমত যাচাই এর প্রস্তাবের জবাবে দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেনশনিবার বিকালে,বিএনপি যে মনোনয়ন বাণিজ্যটা করেছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোথায় রেখেছে সেই টাকাগুলো সুইচ ব্যাংকের হিসাবটা মিলে যাবে খোঁজ নিলেই।টাকা সুইচ ব্যাংকে যাচ্ছে বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য বলেছেন।উনি যাদের (বিএনপি) যাদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ থাকেন,বেশি বলেন যাদের কথা এত,বেশি এসেছে তাদের কথাটিই।তথ্য এসেছেএমনও,২০১৮ সালের নির্বাচন যারা (বিএনপি) ৩০০ সিটে ৬৯২ জন মনোনয়ন পেল,নির্বাচনের যে বাণিজ্যটা করা হলো,একটা আসনের বিপরীতে ৩ জনের অধিক বা দুই জনের অধিক মনোনয়ন দিয়ে,তারা (বিএনপি) কোথায় রাখলো মনোনয়ন বাণিজ্যের সেই টাকাগুলো?যদি কল্যাণ রাষ্ট্রই না হবে বাংলাদেশ,দারিদ্রমুক্ত না হবে,স্বাস্থ্য সেবা না পৌছায় মানুষের দৌড়গোড়ায়-তবে এতো উন্নয়ন-অগ্রগতি হলো কীভাবে দেশের?এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী-বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানার প্রশ্নের জবাবে।সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,অর্থমন্ত্রী শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থ হওয়ায় তাঁর অনুরোধে এবারই প্রথম অর্থ বিল পাসের প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

বাজেটের ওপর আলোচনায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে জনবান্ধব,উন্নয়নমুখী ও সুষম বাজেট হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন প্রধানমন্ত্রী,দেশের প্রত্যেকটি জনগণ উপকৃত হবে এই বাজেটে।এগিয়ে নিয়ে যাবে দেশকে সামনের দিকে।দেশে চলমান উন্নয়নের গতিধারা ও দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখবে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায়।প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,বৈদেশিক সাহায্য নির্ভর ছিল অতীতের সকল সরকারের আমলের বাজেট।উন্নয়ন বাজেটও ছিল বিদেশ নির্ভর।কিন্তু আমরা দক্ষতার সঙ্গে প্রতিবার বাজেট প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করেছি বলেই এবারের বাজেটে বৈদেশিক অনুদানের পরিমাণ মাত্র দশমিক ৮ শতাংশ।আমরা নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন করছিউন্নয়ন বাজেটও।আমাদের আত্মনির্ভরশীলতা এবং আত্মমর্যাদাশীলতা প্রমাণ করেছে এর মাধ্যমে।আমাদের অন্যতম সাফল্য প্রতি অর্থবছরে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখাও।প্রধানমন্ত্রী বলেন-দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাঁর সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা তুলে ধরে,শুধু নিজেরা দুর্নীতি করেনি,অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরা (সামরিক স্বৈরশাসক) ক্ষমতায় থেকে,সমাজে ব্যাধির মতো ছড়িয়ে দিয়েছে দুর্নীতিকে।আমাদের অবস্থান বা নীতি হচ্ছে জিরো টলারেন্স দুর্নীতির বিরুদ্ধে।আমাদের প্রচেষ্টা ও অভিযান অব্যাহত থাকবে দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনে।

 

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন বাজেটের ওপর আলোচনায়,এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ,যাবে এগিয়ে।এবার ৫ লাখ ২৩ লাখ ১৯০ কোটি টাকার সর্ববৃহত্ বাজেট দেয়া হয়েছে,সমৃদ্ধির আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ,সময় এখন আমাদের,সময় এখন বাংলাদেশের,শিরোনামে।গত ১০ বছরে সারাদেশেই অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে,যা দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে।এবার প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ,এশিয়ার মধ্যে সর্বোচ্চ। আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের হিসাব অনুযায়ী সারাবিশ্বে প্রবৃদ্ধি অর্জনে যে ২০টি দেশ অবদান রাখছে,তাদের মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ।প্রধানমন্ত্রী বলেন-টানা দুই মেয়াদে দেশের উন্নয়ন-সাফল্যের তথ্য তুলে ধরে,বাংলাদেশ সব দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে।মানুষের গড় আয়ু ৬৫ থেকে ৭২ দশমিক ৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে,মানুষের মাথাপিছু আয় ৫৪৩ থেকে ১ হাজার ৯০৯ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে।অতি দরিদ্র্যের হার ২৫ শতাংশ থেকে ১১ ভাগে নামিয়ে এনেছি,৪৫ ভাগ দারিদ্র্যতাকে ২১ ভাগের নীচে নামিয়ে আনতে পেরেছি।আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে দারিদ্র্যের হার আগামীতে ১৬/১৭ ভাগে নামিয়ে আনবো।প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,জাতিকে ভার ও দায়মুক্ত করেছি-বর্তমান সরকার চতুর্থ মেয়াদে ক্ষমতায় থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার,জাতীয় চার নেতার হত্যাকাণ্ডের বিচার,যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও রায় কার্যকরের মাধ্যমে।সারাবিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে,বর্তমান সরকারের আমলে শক্তহাতে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমন।

(বি:দ্র: ফাইল ছবি-তথ্য  সংগ্রহকরা)

About admin

Check Also

শিক্ষার্থীদের ডিজিটালি ক্লাস নিতে একটি সুনির্দিষ্ট টেলিভিশন চ্যানেল চালুর পরিকল্পনা-শিক্ষামন্ত্রী।।

অনলাইন ডেস্ক :    শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সারা বছর শিক্ষার্থীদের ডিজিটালি ক্লাস নিতে একটি সুনির্দিষ্ট টেলিভিশন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *