Home / অর্থনীতি / করোনা সংকটেও ঢাকার সেরা করদাতা তানভীর আহমেদ রোমান ভূঁইয়া।।

করোনা সংকটেও ঢাকার সেরা করদাতা তানভীর আহমেদ রোমান ভূঁইয়া।।

সংবাদদাতা: মোঃ শান্ত খান-সাভার।

অনলাইন ডেস্ক :    গেল অর্থবছরের মাঝামাঝিতে শুরু হয় করোনার প্রকোপ। এর প্রভাব সামলিয়ে ঢাকা জেলার সেরা করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন সাভারের আশুলিয়ার বিশিষ্ট তরুন ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক তানভীর আহমেদ রোমান ভূঁইয়া।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে ফারস হোটেল এন্ড রিসোর্টে তার হাতে এ সম্মাননা তুলে দেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

তরুন এই ব্যবসায়ীর রয়েছে টেলিকম, বহুজাতিক কোম্পানীর ডিলারশীপ, আবাসন, স্যাটেলাইট ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্কসহ নানান ব্যবসা। করোনার শুরুতেই সংকটে পড়ে এসব ব্যবসার সিংহভাগ। বিশেষ করে লকডাউন চলাকালীন বড় মাত্রার ধাক্কা খায় তার আবাসন ব্যবসা। জমিজমার বেচাকেনা যেমন কমে গিয়ে শুন্যের কোটায় পৌছায়-তেমনি ভাড়াটিয়ারাও ছেড়ে যেতে থাকেন বাড়ি বাণিজ্যিক ভবন। আয় কমে গেলেও ভাড়াটিয়াদের দেখভালের দায়িত্বও নিতে হয়েছে তাকে। এর পাশাপাশি আরও কিছু খাতে কমে যায় আয়। কিন্তু এসব খাত থেকে আয় কমে গেলেও টেলিকম ব্যবসা থেকে আয় বেড়ে যায় একই সময়ে।

তানভীর আহমেদ রোমান ভূইয়ার বন্ধন ডিষ্টিবিউশন অ্যান্ড সাপ্লাইয়ার্স নামের প্রতিষ্ঠানটি মূলত গ্রামীণফোনের সাভার-আশুলিয়া অঞ্চলের পরিবেশক। আর গ্লোরী ডিষ্টিবিউশন নামের প্রতিষ্ঠানটি হল বিকাশের পরিবেশক। লকডাউনের সময় ঘর থেকে মানুষ কম বের হন। এর পরিবর্তে যোগাযোগের জন্য ইন্টারনেট ও মুঠোফোন এবং লেনদেনের জন্য বিকাশের মত মোবাইল ব্যাংকিং প্লাটফর্ম ব্যবহার করতে থাকেন। এতেই যে মুনাফা বেড়ে যায়, তাতেই অন্যান্য ব্যবসার ক্ষতি পুষিয়ে যায় তার। ব্যবসায়ী তানভীর আহমেদ অবশ্য এজন্য তার কর্মীদেরই ক্রেডিট দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পাঁচ শতাধিক কর্মী রয়েছেন। তাদের জন্যই মূলত এ বছরের সম্মাননা অর্জন। তারা ইচ্ছে করলেই লকডাউনে কাজ করা ছেড়ে দিতে পারতেন। কিন্তু তারা এটি করেননি। ঢাকা জেলায় আমি গত ৫ বছর ধরেই সেরা করদাতা হয়েছি। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে আমার কর পরিশোধের পরিমাণও অন্য বছরের তুলনায় বেশী ছিল।

কোমল স্বভাবের সফল এই ব্যবসায়ী মায়ের দেয়া মাত্র তিন লক্ষ টাকা নিয়ে বহু আগে তার ব্যবসা শুরু করেছিলেন। তাকে নিয়ে গত বছর তিন লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন মা, ছেলে এখন সেরা করদাতা শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। তখন সারাদেশের উদ্যোক্তাদের নিকট থেকে ব্যাপক প্রশংসা কুড়ান তিনি।

জানতে চাইলে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও তরুণ সমাজ সেবক তানভীর আহমেদ রোমান ভূঁইয়া বলেন, ব্যবসা বড় হতে থাকলেও কখনই কর ফাঁকি দেয়ার চিন্তা মাথায় ঢোকেনি। ব্যবসা শুরুর পরের বছর থেকে আমি আয়করদাতা হিসেবে রেজিস্ট্রেশন করি। ব্যবসা যত এগিয়েছে, কর দেয়া ততই বাড়িয়েছি। ২০১৬ সালে ঢাকা জেলায় প্রথম সেরা করদাতা হিসেবে সম্মননা পাই। এরপর ২০১৭, ২০১৮, ২০১৯ এবং সর্বশেষ ২০২০ সালেও সেরা করদাতা নির্বাচিত হলাম। আমি মনে করি, রাষ্ট্রের সঙ্গে কখনই বেঈমানি করা উচিৎ নয়। কখনই সম্পদের হিসাব গোপন রাখা উচিৎ নয়।

About admin

Check Also

দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তাদের অনলাইনভিত্তিক ব্যবসা তথা ই-কমার্সে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।।

অনলাইন ডেস্ক :    সরকার উদ্যোগ নিয়েছে দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তাদের অনলাইনভিত্তিক ব্যবসা তথা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *