Home / রাজনীতি / কোন সরকার বলে না যে-দেশে ধর্ষন হউক,এগুলি ঘটে সামাজিক মুল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে।।

কোন সরকার বলে না যে-দেশে ধর্ষন হউক,এগুলি ঘটে সামাজিক মুল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে।।

লেখক,গবেষক-শেখ সাইফুজ্জামান,অষ্ট্রিয়া।

অনলাইন ডেস্ক :     শেখ হাসিনা সরকারকে হটাতে ৭১-এর পরাজিত শক্তিরা অর্থ ঢেলে ষড়যন্ত্র করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে আট-খাট বেঁধে রাস্তায় নেমেছে কিন্তু আইএমএফ বলছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এশিয়ার তৃতীয় অর্থনৈতিক দেশ ভারতকেও ছাড়িয়ে জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে বাংলাদেশ সবচেয়ে এগিয়ে যাবে।

সে কারনেই নানা চক্রান্ত, পরাজিতরা চায় ইস্যু। আইএমএফ-এর রিপোর্টে ২০২০ সালে বাংলাদেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৩.৩০ শতাংশ আর ভারতে প্রবৃদ্ধি হবে মাইনাস -১০.৩ শতাংশ, সুতারং দেশীয় স্বাধীনতা বিরোধীরা, পরাজিত শক্তি পাকিস্থান ও প্রতিবেশী ভারত বাংলাদেশের মঙ্গল চাইবে কেন?

আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের সংগে টাকার বিনিময়ে যোগ দিচ্ছে বাংলাদেশের রাজাকারের উত্তরসূরীরাও। সুতারং স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিদেরও ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় রাস্তায় নামা দরকার।

কোন সরকার বলে না যে-দেশে ধর্ষন হউক, এগুলি ঘটে সামাজিক মুল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে। ধর্ষন বন্ধে প্রয়োজন সমাজবিজ্ঞানীদের গবেষনা করে কারন বের করে তার সমাধানের উত্তরণের চেষ্টা করা, পাশাপাশি আইনের সঠিক প্রয়োগ।

কিন্তু জাফরউল্লাহরা যখন ধর্ষনের উত্তরণের প্রশ্নে মধ্যবর্তী নির্বাচন দাবি করে, তখনই বুঝা যায় ষড়যন্ত্র কত বিস্তৃত। নূরা-জাফরউল্লাহ-মান্না গং যা করছে তা শুধু দেশের অমঙ্গলের জন্য স্বাধীনতা বিরোধীদের ক্ষমতায় আনার জন্য করছে সুতারং ভয় পাবার কিছুই নেই।

দরকার সবাই একযোগে এদের বিরুদ্ধে লেখা। ৭১- এ স্বশস্ত্র শক্তিশালী পাকিস্তানী সেনাবাহিনীকে পরাজিত করে এদেশ স্বাধীন হয়েছে, পরাজিদদের সে কথা ভুলে গেলে চলবে? সরকারের উচিত ধর্ষন, দূর্নীতি ও ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নিয়া রাস্তায় নামা।কারন জনগনকে নিরাপত্তা ও তাদের পক্ষে রাখার দায়িত্ব সরকারের। সুশাসন দিয়ে জনগনকে পক্ষে রাখার সকল কৌশল সরকারকেই নিতেই হবে, জনগন চায় সুশাসন। জয় বাংলা।

About admin

Check Also

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে-ওবায়দুল কাদের।।

অনলাইন ডেস্ক :     যাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে রক্তের দাগ ও ষড়যন্ত্রের নকশা তারাই হচ্ছে গণতন্ত্রের মুখোশপরা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *