Home / জাতীয় / গণতন্ত্রের স্বার্থে শক্তিশালী বিরোধীদল প্রয়োজন আছে-ড. হাছান মাহমুদ।।

গণতন্ত্রের স্বার্থে শক্তিশালী বিরোধীদল প্রয়োজন আছে-ড. হাছান মাহমুদ।।

অনলাইন ডেস্ক: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ মন্তব্য করেছেন ‘রাজনীতির মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ‘বিগত যৌবনা’।তিনি এই মন্তব্য করেন শনিবার দুপুরে বন্দরনগরীর জেএম সেন হল মাঠে তাঁতী লীগ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে।তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমি সবার প্রতি সম্মান রেখে বলতে চাই- ‘রাজনীতির মাঠে ওনারা (ঐক্যফ্রন্ট) বিগত যৌবনা।তাদের ডাকে কেউ আসছে না।তাদের জনপ্রিয়তা হারিয়ে গেছে।তারা যে কথাগুলো বলছেন মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্য হচ্ছে না সেগুলো।

মন্ত্রী বলেন,ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে বিভিন্ন সভা-সমাবেশ করা হচ্ছে।আমি ঐক্যফ্রন্টকে ধন্যবাদ জানাই, তারা মাঠে নেমেছে। গণতন্ত্রের স্বার্থে শক্তিশালী বিরোধীদল প্রয়োজন আছে।কিন্তু সভা-সমাবেশ করতে তারা ইস্যু খুঁজে পাচ্ছে না।তাই কিছু একটাকে ইস্যু করার চেষ্টা করছেন।কখনো নিরাপদ সড়কের আন্দোলনকে ইস্যু করার চেষ্টা,কখনো আবরার হত্যাকাণ্ডকে ইস্যু করার চেষ্টা।কিন্তু হালে পানি পাচ্ছে না এসব চেষ্টা।তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন,অবশ্যই আপনারা সরকারের সমালোচনা করবেন।সংসদে ও রাজপথে বিরোধীদল বস্তুনিষ্ঠ সমালোচনা করুক-আমরা সেটা চাই।এই সমালোচনা যাতে কণ্টকাকীর্ণ পথচলাকে শাণিত করে।কিন্তু তারা যে অহেতুক সমালোচনা করে,সেটা দেশের জন্য,শুভ নয় মানুষের জন্য।

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন,আমি তাঁতী লীগকে বলবো,আমরা পরপর তিনবার রাষ্ট্রক্ষমতায়।আমাদের দলে অনুপ্রবেশকারী ঢুকেছে।অনেকে নানাভাবে পদ পেয়েছে।বিরোধীদলে থাকার সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের যারা নির্যাতন করেছে, কোনভাবেই তারা যেন দলে প্রবেশ করতে না পারে।অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল,মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন তাঁতী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মো. শওকত আলী।প্রধান বক্তা ছিলেন তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু)শনিবার সকালে দু’দিনব্যাপী ১৬শ আর্ন্তজাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী জানান,এবছর ২ লাখ টন খাদ্যশস্য রপ্তানি করবে বাংলাদেশ আভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে।স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের জনসংখ্যা অনেক বেড়েছে।কমেছে আবাদি জমির পরিমাণ। তারপরও বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। বাংলাদেশ এবছর ২ লাখ টন খাদ্য শস্য রপ্তানি করবে দেশের চাহিদা মিটিয়ে। খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে-২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে।

বি: দ্র: ছবি সংগ্রহকরা

About admin

Check Also

সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক প্রকাশ।।

অনলাইন ডেস্ক :    রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *