Home / জাতীয় / তারল্য সংকট নেই ব্যাংকে-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা…

তারল্য সংকট নেই ব্যাংকে-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা…

অনলাইন ডেস্ক: ব্যাংকে তারল্য সংকট নেই বলেছেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।টাকা আছে ব্যাংকে তবে টাকা নেই লুটে খাওয়ার মতো।সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের পক্ষে সম্পূরক বাজেটের ওপর সমাপনী ভাষণে এ কথা বলেন আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রী।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাবলেন,অনেকে অনেক কথা বলেছেন সম্পূরক বাজেটের আলোচনায় অংশ নিয়ে।বলেছেন কেউ কেউ,টাকা নেই ব্যাংকে।টাকা থাকবে না কেন আমি বলছি,আছে টাকা তবে  টাকা নেই লুটে খাওয়োর মতো।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাবলেন,উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনে বিশ্বে অনেক দেশের সাথে তাল মিলিয়ে আমরা চলতে পারছি আর্থিক ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ এখন যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে বলেই।আজ অবাক হচ্ছে সারা বিশ্ব।এখন উন্নয়নের বিষ্ময় বাংলাদেশ।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাবলেন,সরকারের উন্নয়নের অভিষ্ট লক্ষ্য অর্জনপ্রতি বাজেটেই,জিডিপির প্রবৃদ্ধি,জনগণের চাহিদা ও আকাঙ্খার প্রতিফলন ইত্যাদি বিবেচনায় নিয়ে সরকারের রাজস্ব আদায় ও ব্যয় প্রাক্কলন করা হয়।এই প্রাক্কলন সংঙ্গত কারণেই একটু বেশি করা হয়।অনেকটা উচ্চাভিলাসী হওয়ার প্রয়োজনীয়তাও রয়েছে রাজস্ব হার প্রাক্কলনে।এটা সমৃদ্ধি আগামীর পথে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রেরণা যোগায়।বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা অসম্ভবকে সম্ভব করার গল্প গত এক দশকে। যদি উচ্চাভিলাস না থাকে কোন মানুষের,কিছু অর্জন করতে পারে না সে।এই কথাই প্রমাণ করে বিগত বছরগুলোকে বাজেট বাস্তবায়নের পরিসংখ্যান,আমাদের লক্ষ্যসমূহ সব সময়ই বাস্তবভিত্তিক ছিল।যা পরবর্তীতে বাজেট আলোচনায় বিস্তারিত বলার সুযোগ রয়েছে।প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাস্তবতার কারণেই বাজেটের কিছুটা সংশোধন, পরিবর্তন ও পরিমার্জনের প্রয়োজন হয় এবং প্রতিবছরই আমরা এটা করে থাকি। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে যেসব সামষ্টিক অর্থনৈতিক অনুমানসমূহের ওপর ভিত্তি করে প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছিল, পরবর্তীতে দেশীয় ও বৈশ্বিক নানা ঘটনার কারণে সেসব সামষ্টিক অর্থনৈতিক অনুমানসমূহের মধ্যে কিছুটা পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মূল বাজেট প্রণয়নকালে আমাদের সামষ্টিক অর্থনৈতিক সূচনাগুলোর মধ্যে জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ৮ শতাংশ অনুমান করা হয়েছিল। সংশোধিত বাজেটে তা ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ হবে বলে অনুমান করছি। সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৭ দশমিক ৬ শতাংশ, যা আমরা সাফল্যজনকভাবে অতিক্রম করতে পারবো বলে আশা করছি। অপরদিকে মূল্যস্ফিতি ৫ দশমিক ৬ শতাংশ অনুমান করা হলেও সংশোধিত মূল্যস্ফিতি ধার্য্য করা হয়েছে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ এবং প্রাক্কলিত জিডিপি ২৫ লাখ ৩৭ হাজার ৮শ’ কোটি টাকার পরিবর্তে কিছুটা হ্রাস করে ২৫ লাখ ৩৬ হাজার ১৭৭ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রবৃদ্ধি যখন বৃদ্ধি পায় তখন মূল্যস্ফিতিও বৃদ্ধি পাওয়ার কথা, যেহেতু আমরা বাজেট পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে অত্যন্ত সতর্ক তাই সবসময় মূল্যস্ফিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম হয়েছি।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মূল বাজেটে রাজস্ব বাবদ প্রাক্কলিত ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা থেকে ২২ হাজার ৬৬৭ কোটি টাকা কমিয়ে সংশোধিত বাজেটে ৩ লাখ ১৬ হাজার ৬১৩ কোটি টাকা প্রাক্কলন করা হয়েছে। এরমধ্যে এনবিআর রাজস্ব বাবদ প্রাক্কলিত ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা থেকে ১৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা কমিয়ে সংশোধিত বাজেটে ২ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা ননএনবিআর রাজস্ব বাবদ মূল বাজেটে প্রাক্কলিত ৯ হাজার ৭২৭ কোটি টাকা থেকে সংশোর্ধিত বাজেটে ১২৭ কোটি টাকা কমিয়ে ১ হাজার ৬শ’ কোটি টাকা এবং কর বহির্ভূত রাজস্ব বাবদ মূল বাজেটে প্রাক্কলিত ৩৩ হাজার ২৫২ কোটি থেকে ৬ হাজার ৩৩৯ কোটি টাকা কমিয়ে সংশোধিত বাজেটে ২৭ হাজার ১৩ কোটি টাকা প্রাক্কলন করা হয়েছে।

(বি:দ্র:ছবি ফোকাস বাংলা-তথ্য বাসস থেকে সংগ্রহকরা)

About admin

Check Also

উপনির্বাচন-ভোটগ্রহণ চলছে ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনে।।

অনলাইন ডেস্ক :     আজ বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনে উপনির্বাচনে।ভোটগ্রহণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *