Home / ময়মনসিংহ / দানবাক্স খুললেই মিলে কোটি টাকা।।

দানবাক্স খুললেই মিলে কোটি টাকা।।

অনলাইন ডেস্ক: পাগলা মসজিদ দাঁড়িয়ে আছে কিশোরগঞ্জ শহরে নরসুন্দা নদীর তীরে।দেশজুড়ে পরিচিতি দুই শতাব্দী পুরনো মসজিদটি।তার এই পরিচিতি আবার ভিন্ন কারণে।আর সেটা হচ্ছে এর দানবাক্স খুললেই মিলে কোটি টাকা,বৈদেশিক মুদ্রা ও স্বর্ণালঙ্কার। কোটি  টাকা মিলেছে এবারও।এক কোটি ৫০ লাখ ৮৪ হাজার ৫৯৮ টাকা পাওয়া গেছে শনিবার (২৬ অক্টোবর) পাগলা মসজিদের আটটি দানবাক্স খুলে গণনা করে।এছাড়া পাওয়া গেছে প্রচুর বৈদেশিক ও দেশীয় খুচরা মুদ্রা এবং স্বর্ণালংকার। তিন মাস ১৩ দিন পর লোহার সিন্দুকের এই দানবাক্সগুলো খোলা হয়।দানবাক্স খুলে এক কোটি ১৪ লাখ ৭৪ হাজার ৪৫০ টাকা পাওয়া গিয়েছিলো গত ১৩ জুলাই।

টাকা বাছাই ও গণনার কাজ শুরু হয় সকাল ৯টা থেকে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা,নেজারত ডেপুটি কালেক্টর মীর মো.আল কামাহ্ তমাল,নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদল হাসান,উবাইদুর রহমান সোহেল,পাগলা মসজিদের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা মো. শওকতউদ্দিন ভুঁইয়া,রূপালী ব্যাংকের এজিএম অনুপ কুমার ভদ্রের তত্ত্বাবধানে।বিকাল পর্যন্ত চলে গণনা।

টাকা বাছাইয়ের পর টাকাগুলো বস্তায় ভরেন মসজিদ সংলগ্ন মাদ্রাসার ছাত্র,শিক্ষক,মসজিদ কমিটির লোকজন।পরে রূপালী ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ টাকাগুলো গুনে নেন।রূপালী ব্যাংকে একটি অ্যাকাউন্ট আছে পাগলা মসজিদের নামে।এই টাকা জমা হয় সেখানে।অনেক জনশ্রুতি রয়েছে পাগলা মসজিদ ঘিরে।প্রতিদিনই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য ধর্মপ্রাণ মুসলমান এই মসজিদে আসেন।তারা দান ও মানত করে যান।এছাড়া প্রতিদিনই লোকজন গরু-ছাগল,হাঁস-মুরগি নিয়ে আসে।এগুলো বিক্রি করে ফান্ডে জমা দেওয়া হয়।অন্য সম্প্রদায়ের লোকজনও এসে দান ও মানত করেন এই মসজিদে।

বি: দ্র: ছবি সংগ্রহকরা

About admin

Check Also

জামালপুরের মেলান্দহে পৃথক বিদ্যুতস্পৃষ্টের ঘটনায় শিশু ও এক কৃষকের মৃত্যু।।

অনলাইন ডেস্ক :     পৃথক বিদ্যুতস্পৃষ্টের ঘটনায় শিশু ও এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *