Home / বিবিধ / নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টায় ইউপি সদস্য আটক।।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টায় ইউপি সদস্য আটক।।

অনলাইন ডেস্ক :    মধ্যরাতে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় এক তরুণীকে (১৮) ধর্ষণের চেষ্টায় এলাকাবাসী হেলাল হোসেন (৪৮) নামে এক ইউপি সদস্যকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।তরুণীর বাবা নুরুল আমিন এ ঘটনায় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন কোম্পানীগঞ্জ থানায়।

এ ঘটনা ঘটে সোমবার (৩ মে) রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে।৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য ও একই এলাকার মৃত নূরুল হকের ছেলে গ্রেফতারকৃত হেলাল হোসেন।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে স্থানীয় চরএলাহী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক বলেন,পুলিশের হাতে সোর্পদ করা হয়েছে আটক ইউপি সদস্য হেলাল হোসেনকে।

তথ্যমতে জানাযায়,হেলাল মেম্বার ওই তরুণীকে টেলিফোনে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন দীর্ঘদিন থেকে। তিনি সোমবার রাতে কথা আছে বলে ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে তাকে হাতেনাতে আটক করে স্থানীয়রা।এলাকাবাসী পরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

তথ্যমতে জানাযায়,ভুক্তভোগী তরুণী জানান,গত কয়েক মাস থেকে স্থানীয় ইউপি সদস্য হেলাল মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাকে নানাধরণের কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলে আসছিলেন।সোমবার রাতে তাকে ফোন দিয়ে কথা আছে বলে ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মেম্বারকে হাতেনাতে আটক করে।তিনি এ সময় এলাকাবাসীকে শোনান বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তার কল রেকর্ড।

তথ্যমতে জানাযায়,রাত ৩টার দিকে ইউপি সদস্য হেলালকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন কোম্পানীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো: রিয়াদুল হাসান।

তথ্যমতে জানাযায়,কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি জানান, চরএলাহীর হেলাল হোসেন নামে একজন ইউপি সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে। তরুণীর বাবা নুরুল আমিন এ ঘটনায় বাদি হয়ে মামলা দিয়েছেন।নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে আটককৃত ইউপি সদস্য হেলালকে।ছবি-তথ্য সংগৃহীত

About admin

Check Also

সাভার এর বিশিষ্ট কলা খাদক – ৫ মিনিটেই ১৬ কলা সাবাড়।।

সংবাদদাতা: মোঃ শান্ত খান-সাভার। অনলাইন ডেস্ক :    সাভার এক ছাত্র মোঃআলিফ খান।অনেকেই তাকে এখন ‘কলাখাদক’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *