Home / বিবিধ / প্রবাসীদের অনলাইনে আবেদন করতে হবে ভোটার হওয়ার জন্য।।

প্রবাসীদের অনলাইনে আবেদন করতে হবে ভোটার হওয়ার জন্য।।

অনলাইন ডেস্ক:  শুরুতে অনলাইনে আবেদন করতে হবে প্রবাসীদের ভোটার হওয়ার জন্য।এই আবেদন করতে হবে নির্বাচন কমিশন (ইসি) থেকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে।সেই আবেদন বৈধ বিবেচিত হওয়ার পর ইসির কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্ট দেশে গিয়ে আবেদনকারীদের ভোটার করে নেবে।নতুন এই পদ্ধতির উদ্বোধন করা হবে আগামী ৫ নভেম্বর মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত প্রবাসীদের ভোটার করার কাজ শুরু করার মধ্য দিয়ে।

ভোটার নিবন্ধনের এই কাজ উদ্বোধন করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে।অন্য প্রান্তে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ মালয়েশিয়ার পুত্রাজায়াতে বাংলাদেশ দূতাবাসে উপস্থিত থেকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন।এই তথ্য জানা গেছে নির্বাচন কমিশন সূত্রে।ইসি সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব ও এনআইডি অনুবিভাগের পরিচালক (অপারেশন্স) আবদুল বাতেন এই বিষয়ে বলেন,আমরা অনলাইনে নিবন্ধনের মাধ্যমে প্রবাসীদের ভোটার করার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।মালয়েশিয়ার পর পর্যায়ক্রমে অন্যান্য দেশে এটা চালু করা হবে।এই ক্ষেত্রে ইসিকে সহযোগিতা করবে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর বাংলাদেশ দূতাবাস।

তথ্যমতে,ইসি সচিবালয় সূত্র জানায়,প্রবাসী বাংলাদেশীরা ভোটার হিসেবে নিবন্ধনের আবেদন করতে পারবেন একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি সফটওয়্যারের মাধ্যমে।ওয়েবসাইটটির ঠিকানা: services.nidw.gov.bd। আবেদনের পর সেই সব আবেদন সঠিক কি না,ইসি তা কেন্দ্রীয়ভাবে যাচাই করবে।ইসির কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্ট দেশে গিয়ে যোগ্য ও সঠিক আবেদনকারীদের ছবি তোলাসহ ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও চোখের মনির ছাপ (আইরিশ) গ্রহণ করবে যাচাই–বাছাই শেষে।

তথ্যমতে,ইসি সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে,এই সুযোগ পাবেন মালয়েশিয়া ছাড়াও যুক্তরাজ্য,দুবাই ও সৌদি আরবের প্রবাসীরা।পরে পর্যায়ক্রম অন্যান্য দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিরাও এই সুযোগ পাবেন।এই জন্য ইতিমধ্যে ভোটার তালিকা বিধিমালায় প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হয়েছে।এতে বলা হয়েছে,বিদেশে বসবাসরতরা সেই দেশে ইসির স্থাপিত রেজিস্ট্রেশন কেন্দ্রে গিয়ে কিংবা অনলাইনে ভোটার হওয়ার আবেদন করতে পারবেন।এই ক্ষেত্রে তিনি সর্বশেষ যে এলাকায় বসবাস করেছেন বা নিজের অথবা বাবার বাড়ির ঠিকানায় ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে।পরবর্তীতে তার আবেদন সেই এলাকার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার মাধ্যমে তদন্তের পর দশ আঙুলের ছাপ,চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি ও ভোটারের ছবি তুলে এনআইডি সরবরাহ করা হবে।এর আগের রেজিস্ট্রেশন কেন্দ্রে ও ইসির ওয়েবসাইটে দাবি-আপত্তির জন্য তালিকা দেওয়া হবে।কোনো ভুল থাকলে তা সংশোধন করা যাবে এই সময়ের মধ্যে।এর আগে ইসি সরাসির সিঙ্গাপুরে গিয়ে সেখানে বসবাসরত প্রবাসীদের ভোটার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।তবে এই বিষয়ে যথাসময়ে সিঙ্গাপুর সরকারের কাছ থেকে অনুমতি না পাওয়ায় সেটা সম্ভব হয়নি।পরে ইসি তাদের সিদ্ধান্ত পাল্টে পদক্ষেপ গ্রহণ করে অনলাইনে নিবন্ধনের।

বি: দ্র: ফাইল ছবি

About admin

Check Also

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের আবেদন যেভাবে করবেন।।

অনলাইন ডেস্ক :     গত মাসে প্রকাশিত হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) অধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *