Home / জাতীয় / বাংলাদেশের ২০২০ সালের সরকারি ছুটির তালিকা।।

বাংলাদেশের ২০২০ সালের সরকারি ছুটির তালিকা।।

অনলাইন ডেস্ক: সরকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বাংলাদেশের সকল সরকারি ও আধা-সরকারি অফিস এবং স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাসমূহে ২০২০সালে ছুটি পালনের।

সাধারণ ছুটিসমূহ হচ্ছে,২১ ফেব্রুয়ারি-শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস,১৭ মার্চ-জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম দিবস,২৬ মার্চ-স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস,১ মে-মে দিবস,৬ মে-বুদ্ধ পূর্ণিমা,২২ মে-জুমাতুল বিদা,২৫ মে-ঈদ-উল-ফিতর,১ আগস্ট-ঈদ-উল-আযহা,১১ আগস্ট-শুভ জন্মাষ্টমী,১৫ আগস্ট-জাতীয় শোক দিবস,২৬ অক্টোবর-দুর্গাপূজা (বিজয়া দশমী),৩০ অক্টোবর-ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.),১৬ ডিসেম্বর-বিজয় দিবস,২৫ ডিসেম্বর-যিশু খ্রিস্টের জন্মদিন (বড় দিন) সহ মোট ১৪ দিন।

নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটিসমূহ হচ্ছে,৯ এপ্রিল-শব-ই-বরাত,১৪ এপ্রিল নববর্ষ,২১ মে-শব-ই-ক্বদর,২৪ ও ২৬ মে-ঈদ-উল-ফিতর (ঈদের পূর্বের ও পরের দিন),৩১ জুলাই ও ২ আগস্ট-ঈদ-উল-আযহা (ঈদের পূর্বের ও পরের দিন),৩০ আগস্ট-আশুরা-সহ মোট ৮ দিন।

ঐচ্ছিক ছুটি (মুসলিম পর্ব)সমূহ হচ্ছে,২৩ মার্চ-শব-ই-মিরাজ,২৭ মে-ঈদ-উল-ফিতর (ঈদের পরের ২য় দিন),৩ আগস্ট-ঈদ-উল-আযহা (ঈদের পরের ২য় দিন),১৪ অক্টোবর-আখেরি চাহার সোম্বা,২৭ নভেম্বর-ফাতেহা-ই-ইয়াজদাহম-সহ মোট ৫ দিন।

ঐচ্ছিক ছুটি (হিন্দু পর্ব) সমূহ হচ্ছে,২৯ জানুয়ারি-শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা,২১ ফেব্রুয়ারি-শ্রী শ্রী শিবরাত্রি ব্রত,৯ মার্চ-শুভ দোলযাত্রা,২২ মার্চ-শ্রী শ্রী হরিচাঁদ ঠাকুরের আবির্ভাব,১৭ সেপ্টেম্বর-শুভ মহালয়া।২৫ অক্টোবর-শ্রী শ্রী দুর্গাপূজা (নবমী),৩০ অক্টোবর-শ্রী শ্রী লক্ষ্মী পূজা,১৪ নভেম্বর-শ্রী শ্রী শ্যামা পূজা-সহ মোট ৮ দিন।

ঐচ্ছিক ছুটি (খ্রিস্টান পর্ব) সমূহ হচ্ছে,১ জানুয়ারি-ইংরেজি নববর্ষ,২৬ ফেব্রুয়ারি-ভস্ম বুধবার,৯ এপ্রিল-পুণ্য বৃহস্পতিবার,১০ এপ্রিল-পুণ্য শুক্রবার,১১ এপ্রিল-পুণ্য শনিবার,১২ এপ্রিল-ইস্টার সানডে,২৪ ও ২৬ ডিসেম্বর-যিশু খ্রিস্টের জন্মোৎসব (বড় দিনের পূর্বের ও পরের দিন)-সহ মোট ৮ দিন।

ঐচ্ছিক ছুটি (বৌদ্ধ পর্ব)সমূহ হচ্ছে,৮ ফেব্রুয়ারি-মাঘী পূর্ণিমা,১৩ এপ্রিল-চৈত্র সংক্রান্তি,৪ জুলাই-আষাঢ়ি পূর্ণিমা,২ সেপ্টেম্বর-মধু পূর্ণিমা (ভাদ্র পূর্ণিমা),১ অক্টোবর-প্রবারণা পূর্ণিমা (আশ্বিনী পূর্ণিমা)-সহ মোট ৫ দিন।

ঐচ্ছিক ছুটি (পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকা ও এর বাইরে কর্মরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত কর্মচারীদের জন্য) সমূহ হচ্ছে,১২ ও ১৫ এপ্রিল-বৈসাবি ও পার্বত্য চট্টগ্রামের অন্যান্য ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীসমূহের অনুরূপ সামাজিক উৎসব-সহ মোট ২ দিন।

উল্লেখ্য,চাঁদের সাথে সংশ্লিষ্ট ধর্মীয় ছুটির তারিখ চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল।একজন কর্মচারী তার নিজ ধর্ম অনুযায়ী বছরে অনধিক মোট ৩ (তিন) দিন ঐচ্ছিক ছুটি ভোগের অনুমতি পেতে পারেন এবং প্রত্যেক কর্মচারীকে বছরের শুরুতে নিজ ধর্ম অনুযায়ী নির্ধারিত ৩ (তিন) দিনের ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করার জন্য উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের পূর্ব অনুমোদন গ্রহণ করতে হবে।সাধারণ ছুটি,নির্বাহী আদেশে ছুটি ও সাপ্তাহিক ছুটির সাথে যুক্ত করে ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করার অনুমতি দেয়া যেতে পারে।যে সকল অফিসের সময়সূচি ও ছুটি তাদের নিজস্ব আইন-কানুন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়ে থাকে অথবা যে সকল অফিস,সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের চাকরি সরকার কর্তৃক অত্যাবশ্যক হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অফিস,সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নিজস্ব আইন-কানুন অনুযায়ী জনস্বার্থ বিবেচনা করে এই ছুটি ঘোষণা করবে।এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এই সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করে ৩০ অক্টোবর।

About admin

Check Also

বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামানের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক প্রকাশ।।

অনলাইন ডেস্ক :    রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *