Home / আন্তর্জাতিক / ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম,এশিয়া ২১ ইয়ং লিডার-২০১৮ মনোনীত…

ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম,এশিয়া ২১ ইয়ং লিডার-২০১৮ মনোনীত…

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম-গ্লোবাল প্রোগাম ফর উইমেনস লিডারশিপে’র ফেলো মনোনীত হয়েছেন।সামাজিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ততা,আইন পেশায় দক্ষতা ও জনস্বার্থে দায়ের করা মামলার সফলতার স্বীকৃতি হিসেবে তাঁকে এ সম্মান জানানো হয়।ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ‘এশিয়া ২১ ইয়ং লিডার-২০১৮’ মনোনীত হয়েছেন।এশিয়া সোসাইটির ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।২০১৮ সালে একমাত্র তিনিই বাংলাদেশ থেকে এ গৌরব অর্জন করলেন।

সম্মেলনে স্বাস্থ্য,শিক্ষা ও পেশার খাতগুলোতে চ্যালেঞ্জ ও তা মোকাবিলার উপায়,টেকসই উন্নয়ন ও প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা হয়।এরপর সম্মেলন শেষে বাংলাদেশ থেকে ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ও অন্যান্য দেশ থেকে আগত ৩১ জনকে গ্লোবাল প্রোগাম ফর উইমেনস লিডারশিপের ফেলো মনোনীত করা হয়।সম্প্রতি তামাদি হয়ে যাওয়া ও বিভিন্ন বৈষম্যমূলক আইনকে বাংলাদেশের উচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জ করেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম।তিনি জরুরি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের আইনগত বাধ্যবাধকতা,মৃত্যু পরবর্তী অঙ্গদানসহ বিভিন্ন মৌলিক নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করা সংক্রান্ত আইনি কাঠামো তৈরি।

ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চ শিক্ষাপ্রাপ্ত।তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ল’ফার্ম বেকার অ্যান্ড মেকাঞ্জির লন্ডন অফিসে কর্মরত থাকা অবস্থায় কোম্পানি এবং বাণিজ্যিক আইন বিষয়ে প্রভূত অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। ব্যারিস্টার রাশনা ইমামের অভিজ্ঞতা রয়েছে বিশ্বখ্যাত মিত্তাল এবং শিন্ডার ইলেক্ট্রিক কোম্পানিকে প্রতিনিধিত্ব করার।ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম,চেম্বারস অ্যান্ড পার্টনারস,এশিয়া প্যাসিফিক-২০১৮ এর একজন শীর্ষস্থানীয় আইনজীবী।ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম,বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানীয় বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী এবং বহুজাতিক কোম্পানিকে আইনি পরামর্শ এবং সেবা দিচ্ছেন।জনস্বার্থে দায়ের করা বিভিন্ন মামলায় সাফল্য,সামাজিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত রয়েছেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম।

ব্যারিস্টার আখতার ইমাম হচ্ছেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমামের বাবা।তিনি সুপ্রিম কোর্টের স্বনামধন্য জ্যেষ্ঠ আইনজীবী।ব্যারিস্টার রাশনা ইমামের স্বামী ববি হাজ্জাজ একজন রাজনীতিবিদ।তিনি জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন- এনডিএম এর চেয়ারম্যান।

এখানে উল্লেখ্য, এশিয়া ২১ ইয়ং লিডারস এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের তরুণ নেতাদের সবচেয়ে শক্তিশালী প্লাটফরম।এশিয়া সোসাইটির উদ্যোগে ১৯৫৬ সালে জন ডি রকফেলার তৃতীয় এটা প্রতিষ্ঠা করেন।যাদের ৪০টি দেশে প্রায় ৯০০ প্রভাবশালী অ্যালামনাই রয়েছে।এটি অরাজনৈতিক,অলাভজনক প্রতিষ্ঠান।এর লক্ষ্য এশিয়া এবং আমেরিকার সাধারণ জনগণ,নেতা এবং প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে পারষ্পরিক সহযোগিতা এবং বোঝাপড়ার সম্পর্ককে মজবুত করা।

(বি:দ্র:ফাইল ছবি- তথ্য সংগ্রহকরা)

About admin

Check Also

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ট্রাক-অ্যাম্বুলেন্স মুখোমুখি সংঘর্ষ-দুই গাড়ির মাঝে পড়ে ভ্যানচালক নিহত।।

অনলাইন ডেস্ক :    ট্রাক-অ্যাম্বুলেন্স মুখোমুখি সংঘর্ষে ফুরু শেখ (৫৫) নামে এক ভ্যানচালক নিহত হয়েছেন গোপালগঞ্জের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *