Home / রাজনীতি / ২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড,আর ১৫ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড একই পরিবারের-ওবায়দুল কাদের ।।

২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড,আর ১৫ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড একই পরিবারের-ওবায়দুল কাদের ।।

অনলাইন ডেস্ক: খন্দকার মোশতাক মীর জাফর হলে জিয়াউর রহমান রায় দুর্লভ।বলেছেন,জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনায় অংশ নিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।তিনি এই মন্তব্য করেন মঙ্গলবার সচিবালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী ঐক্য পরিষদের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে। বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মঈনুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপিস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ,স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ,ভূমি সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী, বিসিএস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর মোশাররফ হোসেন।

এই সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন,বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাঙালির প্রকৃত বন্ধু।তিনি ছাড়া বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্র রচিত হতো না,স্বাধীন জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ ছিল অসম্ভব। বঙ্গবন্ধু আমাদের অনুপ্রেরণা।সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন,২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড,আর ১৫ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড একই পরিবারের।পিতা এবং পুত্র,আর দুই হত্যাকাণ্ডের প্রাইম টার্গেট হলো পিতা এবং কন্যা।ইতিহাসের কো-ইন্সিডেন্স লক্ষ্য করুন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,পলাশীতে রায় দুর্লভের যে ভূমিকা ছিলো,১৫ আগস্ট সেনাপতি জিয়াউর রহমানেরও খন্দকার মোশতাকের সঙ্গে একই ভূমিকা ছিল।মোশতাক যদি হয় মীর জাফর,রায় দুর্লভ হচ্ছেন জিয়াউর রহমান।ইতিহাসের এই অবাঞ্ছিত সত্যের পুনরাবৃত্তি বারেবারে ঘটেছে।সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেন,জবানবন্দিতে মুফতি হান্নান বলেছে,হাওয়া ভবন থেকে তারেক রহমানের নির্দেশ পাওয়ার পরপরই গ্রেনেড (১৫ আগস্ট) হামলা শুরু হয়।খুন খুনকে ডেকে আনে,হত্যা হত্যাকে ডেকে আনে। যে বুলেট শেখ হাসিনা,শেখ রেহানাকে এতিম করেছে,সেই বুলেট বেগম জিয়াকে বিধবা করেছে।এই অমোঘ সত্যকে পাশ কাটিয়ে যাওয়ার কোনো উপায় নেই।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,বঙ্গবন্ধুর জন্য চোখের জল ফেলে লাভ নেই।৪৪ বছর পর আর শোক করে লাভ নেই।বঙ্গবন্ধু যে শিক্ষা আমাদের দিয়ে গেছেন,যে বাংলাদেশের স্বপ্ন তিনি দেখেছেন,সেই বাংলাদেশটা যেন আমরা নির্মাণ করতে পারি।বঙ্গবন্ধুই বলেছেন,গ্রেট জব যদি তুমি করতে চাও,গ্রেট স্যাকরিফাইস তোমাকে করতে হবে।প্রত্যেকেরই প্রফেশনাল,চাকরি,রাজনৈতিক,জীবনে আমরা যদি গ্রেট জব করতে গিয়ে গ্রেট স্যাকরিফাইস করতে পারি,সেই মানসিকতা অর্জন করতে পারি,তাহলেই কেবল সোনার বাংলা গড়ায় তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে এর চেয়ে বড় কিছু আর নেই।সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,সচিবালয়ে আমরা যারা আছি,আমরা যারা সরকারের প্রশাসনে আছি, কাজ করি।দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হবে,এই শপথটা আসুন আমরা মনে মনে নিই।আগস্ট মাস এলেই বঙ্গবন্ধুর বড় বড় ছবি।কখনো কখনো বঙ্গবন্ধুর ছবি প্রদর্শন করতে গিয়ে নিজের ছবিটাকে আরো বড় করে অনেকে প্রদর্শন করে।ছবি প্রদর্শন করে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করা যাবে না।বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসরণ করলে,তার নৈতিকতা থেকে শিক্ষা নিলে,সেটাই হবে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের সর্বোৎকৃষ্ট উপায়।

(বি:দ্র: ছবি-তথ্য সংগ্রহকরা)

About admin

Check Also

আগামীকাল যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে-ওবায়দুল কাদের।।

অনলাইন ডেস্ক :     আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *