Home / আন্তর্জাতিক / ৩৬ ঘণ্টার যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছেন পুতিন,মানছেন না জেলেনস্কি।।

৩৬ ঘণ্টার যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছেন পুতিন,মানছেন না জেলেনস্কি।।

অনলাইন ডেস্ক :    রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন শুক্রবার দুপুর থেকে শনিবার রাত পর্যন্ত ৩৬ ঘণ্টার যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছেন।তিনি জানিয়েছেন,অর্থডক্স ক্রিসমাসের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।এই সময়পর্বে রাশিয়ার সেনা কোনোরকম আক্রমণ চালাবে না।গোলাগুলি বন্ধ থাকবে।

ক্রেমলিন জানিয়েছে,রাশিয়ার ধর্মীয় নেতা প্যাট্রিয়ার্ক কিরিলের অনুরোধে একাজ করেছেন পুতিন।বস্তুত,পুতিন নিজেও জানিয়েছেন,কিরিল বলার পরেই এই সিদ্ধান্ত তিনি নিয়েছেন।

রাশিয়া জানিয়েছে,রাশিয়ার সময় শুক্রবার বেলা ১২টা থেকে শনিবার রাত ১২টা পর্যন্ত এই যুদ্ধবিরতি চলবে।গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর সার্বিকভাবে এই প্রথম কোনোপক্ষ যুদ্ধবরিতি ঘোষণা করল।

জেলেনস্কি মানছেন না  :    ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি পুতিনের আহ্বানে সারা দেননি।তিনি বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন,এ-ও এক ধরনের কৌশল।যুদ্ধবিরতির নাম করে রাশিয়ার সেনাকে ইউক্রেনের আরো বেশ কিছু জায়গায় ঢুকিয়ে দিতে চাইছেন পুতিন।বস্তুত, ইউক্রেনের বেশ কিছু অঞ্চলে এখনো রাশিয়ার সেনা আছে।বিশেষত পূর্ব ইউক্রেনের ডনবাস অঞ্চলে বিপুল পরিমাণ রাশিয়ার সেনা এলাকা দখল করে রেখেছে।

জেলেনস্কি জানিয়েছেন,রাশিয়ার এই প্রস্তাব তখনই গ্রহণ করা যবে যখন রাশিয়ার সেনা ইউক্রেন ছেড়ে চলে যাবে।

আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া  :      রাশিয়ার এই ঘোষণা এককথায় আন্তর্জাতিক মহলও মেনে নিচ্ছে না।জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক বলেছেন,যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে হলে রাশিয়াকে ইউক্রেন থেকে সেনা ফিরিয়ে নিতে হবে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিচেপ তাইয়েপ এর্দোয়ানও এই সিদ্ধান্তের পর রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে ফোন করেন।তিনিও সার্বিকভাবে যুদ্ধবিরতির পরামর্শ দেন।তবে পুতিন এবিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।ক্রেমলিন স্পষ্টই জানিয়েছে,এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে শুধুমাত্র অর্থডক্স ক্রিসমাস পালনের জন্যই।

ছবি: সংগৃহীত

About admin

Check Also

রাশিয়ার সাইবেরীয় শহর কেমেরভোতে একটি বৃদ্ধাশ্রমে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অন্তত ২২ জন নিহত।।

অনলাইন ডেস্ক :    রাশিয়ার সাইবেরীয় শহর কেমেরভোতে একটি বৃদ্ধাশ্রমে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অন্তত ২২ জন নিহত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *