Home / রাজনীতি / বেগম জিয়াকে এখন বিদেশে নয়,দেশেই তার সেবা-শুশ্রুষা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন-তথ্যমন্ত্রী।।

বেগম জিয়াকে এখন বিদেশে নয়,দেশেই তার সেবা-শুশ্রুষা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন-তথ্যমন্ত্রী।।

অনলাইন ডেস্ক :    দেশে সর্বোচ্চ চিকিৎসাসুবিধা সত্ত্বেও খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার আবেদন বিএনপির রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।বলেছেন,আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এ কথা বলেন রবিবার দুপুরে ঢাকার মিন্টু রোডে সরকারি বাসভবন থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে সায়েদাবাদের আর কে চৌধুরী ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গণে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের পক্ষ থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন,বেগম খালেদা জিয়া সুস্থ হোন,সেটিই আমরা চাই এবং এজন্য মহান স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করি,আজ বিএনপি সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে বেগম জিয়া দ্রুত আরোগ্যলাভ করছেন,এটি অত্যন্ত সুখবর।তথ্যমন্ত্রী বলেন,খালেদা জিয়া দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসুবিধা পাচ্ছেন এবং এটি নিশ্চিত করতে সরকার বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সবাইকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন।সর্বোচ্চ চিকিৎসা সুবিধার ফলে ইতোমধ্যেই তার করোনা নেগেটিভ এসেছে।এজন্য চিকিৎসকদেরও ধন্যবাদ জানাই।কিন্তু এরপরও বেগম জিয়াকে বিদেশে নেয়ার জন্য বিএনপির আবেদন-নিবেদনের হেতু বোধগম্য নয়,এর পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য কাজ করছে,কারণ তিনি এখানে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠছেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন,করোনা পজিটিভ কোনো রোগীকে অন্য কোনো দেশ নিচ্ছে না এবং নেগেটিভ হবার পরও বেশ কিছুদিন যে নানা শারীরিক সমস্যা থাকে,তা আমার করোনা হয়েছিল বলে আমি জানি,এগুলো স্বাভাবিক।বেগম জিয়াকে এখন বিদেশে নয়,দেশেই তার সেবা-শুশ্রুষা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন।সেকারণে বেগম জিয়াকে তাদের (বিএনপির) বিদেশে নিয়ে যাবার আবেদনের উদ্দেশ্য চিকিৎসা নয়,রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বলেই আমার মনে হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা পরিষদের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো: শাহাদত হোসেন টয়েলের সার্বিক তত্ত্বাবধানে বিশেষ অতিথি হিসেবে-আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট বলরাম পোদ্দার,এম এ করিম,বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল গণি ও স্বাধীনতা পরিষদের সভাপতি জিন্নাত আলী খান জিন্নাহ বক্তব্য রাখেন।অতিথিবৃন্দ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠানে প্রায় পাঁচশত পরিবারের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন।ছবি-তথ্য সংগৃহীত

About admin

Check Also

শেখ হাসিনা থাকলে বাংলাদেশের উন্নয়ন হবে-ওবায়দুল কাদের।।

অনলাইন ডেস্ক :    পদ্মাসেতু উদ্বোধন হবে একথা শুনলেই বিএনপির মুখ কালো হয়ে যায়।বলেছেন,আওয়ামী লীগ সাধারণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *